পাথরঘাটার হরিণঘাটা বন থেকে কোস্টগার্ডের অভিযানে দুই জলদস্যু আটক।

বরগুনার পাথরঘাটায় কোস্টগার্ডের অভিযানে গোলাবারুদ এবং দেশিও অস্ত্র বন্দুকসহ ২ জলদস্যু আটক।

আজ বুধবার (২২ শে জুলাই) আনুমানিক রাত সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার হরিণঘাটা নামক বনের ভিউ টাওয়ারের নিচ থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলো, পাথরঘাটা উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের ঘুটাবাছা গ্রামের মো. মহাসিনের ছেলে মো. রিয়াজ (২৩) ও একই এলাকার আ. মন্নানের ছেলে মো. রাজু(২৫)।

আটককৃতদের কাছ থেকে চারটি একনলা বন্দুক, ছয় রাউন্ড গুলি ও দুইটি বড় চাকুসহ তাদেরকে আটক করেছে দক্ষিণ স্টেশন কোষ্টগার্ড পাথরঘাটা। কোস্টগার্ডের দাবি এরা জলদস্যু রিপন বাহিনীর সদস্য।

পাথরঘাটা দক্ষিণ স্টেশন কোষ্টগার্ড কমান্ডার মেহেদী হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কোষ্টগার্ড স্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট মেহেদী হাসান জানান, ৬৫ দিনের মৎস্য অবরোধ শেষে সাগরে যখন জেলেরা মাছ ধরার প্রস্তুতি নিচ্ছিল তখনই বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ৮/১০ জন জলদস্যু হরিণঘাটা বনাঞ্চলের ভিতরে একত্রিত হয়ে গোপন বৈঠকের পরিকল্পনা করছে মর্মে আমাদের কাছে তথ্য আসে। আমরা বিষয়টি আমলে নিয়ে রাত নয়টার দিকে ঝূকি নিয়ে হরিণঘাটা বনাঞ্চলে ভিতরে প্রবেশ করি। আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে দস্যুরা কয়েক রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। আমরাও পাল্টা গুলি ছোড়ি। তখন উভয় পক্ষের প্রায় ১৪-১৫ রাউন্ড গুলি ছোঁড়া হয়। একপর্যায়ে অবস্থা বেগতিক দেখে দস্যু বাহিনীর সদস্যরা পালাতে চেষ্টা করে। এ সময় আমরা দুজনকে আটক করতে সক্ষম হই। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরে আমরা জঙ্গলের ভিতর তল্লাশি করে চারটি অস্ত্র, ছয় রাউন্ড গুলি ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করি। আটককৃত জলদস্যুরা রিপন বাহীনির সদস্য।

লেফটেন্যান্ট মেহেদী হাসান আরো জানান, সুন্দরবন এবং বঙ্গোপসাগর জলদস্যু মুক্ত রাখার জন্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সর্বদা তৎপর রয়েছে। কিছুদিন আগেও এই এলাকার সুন্দরবন সংলগ্ন বিহঙ্গ দ্বীপ থেকে বেশ কিছু অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করে একটি জলদস্যুদের আস্তানা ধ্বংস করা হয়েছে।

১ টি মন্তব্য

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে