আবারও রাস্তায় পোশাক শ্রমিক

bgmea
ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ২৩.০৭.২০২০


বকেয়া বেতনের দাবিতে গার্মেন্টস শ্রমিকদের আন্দোলন আজ বুধবার আবার শুরু হয়েছে। শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানা যায় দীর্ঘদিন যাবত তাদের বেতন দিচ্ছে না মালিক পক্ষ। কারখানার নাম “” রেদোয়ান টেক্স” এটি উত্তরখান, উত্তরা, ঢাকা।


গত কয়েকদিন ধরেই বাংলাদেশে গার্মেন্টস শ্রমিকরা মজুরি বৃদ্ধির দাবীতে বিক্ষোভ করছে।আজ সকাল থেকেই বিইএমইএ সামনে জড় হতে থাকে একের পর এক শ্রমিক।



উল্লেক্ষ, কিছুদিন আগে ঢাকার রাজধানীতে প্রবেশের মুখে বিমানবন্দর সড়ক কয়েক ঘণ্টার জন্যে অবরোধ করে রাখে পোশাক শ্রমিকরা। এসময় একটি বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটে।

আন্দোলনের পেছনে দেশী-বিদেশী উস্কানি রয়েছে: বিজিএমইএ সভাপতি
রেদোয়ান টেক্সের মালিক মোঃ মিজান বলেন, শ্রমিকদের এ আন্দোলনের পেছনে উস্কানি বা ষড়যন্ত্র রয়েছে।

বিইএমইএ জানিয়েছে, অর্থনীতি সচল রাখতে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় পোশাক কারখানা খোলা রাখার নির্দেশনা বিজিএমইএ দেবে। তবে সেই নির্দেশনা পাওয়ার আগ পর্যন্ত যেসব শ্রমিক গ্রামে আছে, তাদের ঢাকায় না আসতে বলার অনুরোধ করা হচ্ছে।

পর্যায়ক্রমে এলাকাভিত্তিক পোশাক কারখানা খোলার নির্দেশনা দেয়া হবে। সেক্ষেত্রে শুরুতে কারখানা সীমিত আকারে খোলা রাখা যাবে। ফলে প্রথম ধাপে কারখানার আশপাশে যেসব শ্রমিক থাকে, তাদেরই কাজে যোগদান করতে বলা যাবে।

ওদিকে, জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) এশিয়া–প্রশান্ত মহাসাগরীয় আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে সদ্য প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে আশংকা করা হয়েছে, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারে তৈরি পোশাকের বেশির ভাগ কারখানা বন্ধ হয়ে যাবে।

তাতে বহু নারী শ্রমিক কাজ হারাবেন। এই নির্দেশনা অনুযায়ী শ্রমিক জীবনের বাজি রেখে কাজে আসে তারপরেও তারা ঠিকভাবে বেতন না পায় তাহলে তাদের কি আর করার থাকে।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে