ফুলবাড়ীর তরুনী রাজধানীতে রহস্যজনক মৃত্যু, পরিবারের দাবী হত্যা।

: ০৪.০৮.২০২০


রাজধানীর হাজারীবাগের গণকটুলি এলাকায় আফরোজা আক্তার আশা (১৮) নামের এক তরুনীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। নিহত তরুনী কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের রাবাইটারী গ্রামের আজগার আলীর মেয়ে ও সাইফুর রহমান সরকারী কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী।

গত রবিবার (২ আগস্ট) রাত সাড়ে ১০টার দিকে তার স্বামী অচেতন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই তরুনীকে মৃত ঘোষণা করেন। তরুনীর মৃত্যুর খবর কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। সেই সাথে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমেও ত্রীব নিন্দার ঝঁড় বইছে। এলাকাবাসী তরুনীর মৃত্যুর কারণ উৎঘাটন করে দোষীদের শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার সন্ধায় নিহত তরুনীর বাড়ী কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের রাবাইটারী গ্রামে গেলে তার বাবা আজগার আলীসহ এলাকাবাসী আশাকে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবী করেছেন। এ ভাবে আশাকে অকালে হারাতে হবে তা কখনো ভাবেনি। মেয়ের শোকে আহাজারী করতে করতে মুর্ছা যান বাবা-মাসহ পরিবারের লোকজন।

এলাকাবাসী ও পরিবার সুত্রে জানা গেছে, গত দুই মাস আগে একই উপজেলার রাম রাম সেন এলাকার মৃত বকুল চন্দ্র দাসের ছেলে প্রেমিক অনিক চন্দ্র দাস (২২) আফরোজা আক্তার আশাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে সংসার শুরু করেন। বিয়ের পর থেকে তারা হাজারীবাগের গণকটুলীতে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। তরুনীর স্বামী ঢাকায় নিউমার্কেট এলাকায় একটি পাঞ্জাবির দোকানে কাজ করেন বলে জানা গেছে।

এদিকে আফরোজা আক্তার আশাকে কোথাও খুজে না পেয়ে তার ভাই জাহিদুল ইসলাম গত ১০ জুন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী থানায় একটি সাধারণ জিডি দায়ের করেছেন বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজীব কুমার রায়।

এ প্রসঙ্গে রাজধানীর হাজারীবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজিদুর রহমান জানান, তরুনীর রহস্যজনক মৃত্যু হওয়ায় থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং তার স্বামী অনিক চন্দ্র দাস ওরপে আব্দুল্লাহকে আজ জেলখানায় পাঠানো হয়েছে। মৃতদেহ ময়না তদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে