বরগুনার বামনায় মানববন্ধনে পুলিশে গালি দিয়ে পিটাতে থাকেন মেজর সিনহার সাথে থাকা সিফাতের সহপাঠীদের।

নিউজ ডেস্ক,

বরগুনার বামনায় মানববন্ধনে পুলিশে গালি দিয়ে পিটাতে থাকেন মেজর সিনহার সাথে থাকা
সিফাতের সহপাঠীদের।

মেজর শিনহার গাড়ি বহরে সাথে থাকা সিফাতকে কারাগারে আটকে রাখার প্রতিবাদে  মানববন্ধন কর্মসূচি  পালন করতে গিয়ে পুলিশের  লাঠিচার্জে  ১০ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। 
কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে মেজর (অবঃ) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের সাথে থাকা বরগুনা জেলার বামনা উপজেলার সিফাতের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও কারাগার থেকে মুক্তির দাবিতে করা মানববন্ধনে অংশ নেয় সিফাতের নীজ গ্রামের সহপাঠীরা এ সময় তারা সিফাতকে অবৈধভাবে আটকে রেখেছে বলেও দাবি করেন।

শনিবার (৮ আগষ্ট) দুপুর ১২ টায় সিফাতের নিজ গ্রাম বরগুনার বামনায় এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। ঘন্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে গ্রেফতার সিফাতের শিক্ষক, সহপাঠি, স্বজন ও এলাকাবাসী অংশগ্রহণ করেন।

এসময় বামনা থানা পুলিশের একটি দল প্রথমে শিক্ষার্থীদের হাতে থাকা ব্যানার-পোষ্টার ছিনিয়ে নেয়। এর ১০ মিনিট পরে বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইলিয়াস মানববন্ধনে থাকা শিক্ষার্থীদের লাঠিচার্জ শুরু করেন এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এসময় সিফাতের স্বজনদেরও গালাগালাজ করা হয়।

আটক সিফাতের নানা বামনা সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আইউব আলী হাওলাদারকে পুলিশ গালিগালাজ করেন বলে অভিযোগ করেছেন।

এর আগে পুলিশ  মেজর শিনহার সাথে থাকা বরগুনার বামনা উপজেলার সিফাতকে আটক করে জেলে পাঠিয়েছেন টেকনাফের বরখাস্ত হওয়া পুলিশ কর্মকর্তারা

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে