রৌমারীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কলেজ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ।

নিজস্ব প্রতিবেদক,

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কলেজ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষকের বাড়িতে ধর্ষিতার দুই দিন ধরে অনশন চলছে। সোমবার (১০ আগস্ট ) উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামে এঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে জুয়েল রানা (২৫) অনেক দিন ধরে শৌলমারী ইউনিয়নের বোয়ালমারী গ্রামের এক কলেজ শিক্ষার্থীর সাথে প্রেম করে আসছে। রোববার (৯ আগস্ট ) সকালে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দূর সম্পর্কের এক আত্মীয়র বাড়িতে নিয়ে গিয়ে জোরপুর্বক ধর্ষণ করে। পরে ভুলভাল বুঝিয়ে ওই কলেজ শিক্ষার্থীকে বাড়িতে পাঠিয়ে আত্মগোপনে চলে যায় ধর্ষক জুয়েল রানা।

ধর্ষিতা ওই কলেজ শিক্ষার্থী দাবি করে বলেন, আমাকে বিয়ের লোভ দেখিয়ে আমার সর্বশ্য কেড়ে নিয়েছে। আমি এখন নিরুপায় হয়ে দুই দিন ধরে তার বাড়িতে বিচারের দাবিতে অবস্থান করছি। বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমি বাড়ি থেকে যাবো না।

এ বিষয়ে সংশিষ্ট ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শাহজাহান আলীর কাছে জানতে চাইলে সে ঘটনার সত্যতা শিকার করে বলেন, মেয়েটি দুই দিন ধরে আমার বাড়িতে রয়েছে। অভিযুক্ত ছেলে পলাতক আছে। তাকে খোজাখুজি করছি। বাড়িতে এলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এব্যাপারে রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) আবু মো.দিলওয়ার হাসান ইনাম বলেন, এখনও কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনিল চন্দ্র রায়/ ০১৭১৪৫২৪৫০৭

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে