বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবেঃ অঞ্জন কুমার নন্দী

করোনা পরিস্থিতিতে গৃহবন্দী থাকলেও থেমে নেই স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও তাঁর স্মরনে আলোচনা সভা।

আজ ১৭ই আগস্ট, চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ এর উদ্যোগে বিভাগীয় আলোচনা ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয় জুম অ্যাপসের মাধ্যমে।

ব্যবস্থাপনা বিভাগের আয়োজিত উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্যবস্থাপনা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সারাহ পারীন এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অত্র প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ জনাব অঞ্জন কুমার নন্দী।

শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠান ছিল বেশ প্রাণবন্ত ও শিক্ষণীয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় প্রধান সারাহ পারীন বলেন, “জাতির পিতার হত্যাকান্ড বাঙালির জন্য চরম লজ্জ্বার।

তবে, এই লজ্জ্বা আমাদের ঘোচাতে হবে দেশের প্রতি আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্যের দ্বারা।” আলোচনার এক পর্যায়ে জনাব অঞ্জন কুমার নন্দী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, “বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।”

এক ঘন্টার এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অত্র বিভাগের অধ্যাপক ও প্রভাষকবৃন্দরাও উপস্থিত ছিলেন এবং অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষিকা তায়েবা আক্তার।

১৫ই আগস্ট, এই দিনটি বাঙালি জাতির ইতিহাসে কলঙ্কেরও। যে মহান পুরুষ বাঙালি জাতিকে স্বাধীন বাংলাদেশ উপহার দিয়েছিলেন, ১৯৭৫ সালের এই দিন ভোরে তাঁকেই সপরিবারে হত্যা করেন একদল বিপথগামী সেনা সদস্য।

সেদিন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্য দিয়ে তাঁরা শুধু বাঙালি জাতিকেই কলঙ্কিত করেননি, বাধাগ্রস্ত করেছিলেন ‘সোনার বাংলা’ গড়ার স্বপ্নকেও।

সেদিন রাজধানীর ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর বাড়িতে ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে ছাড়াও তাঁর সহধর্মিণী শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব, একমাত্র ভাই শেখ আবু নাসের,

জ্যেষ্ঠ ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল, মেজো ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল, শিশুপুত্র শেখ রাসেল, পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজী জামালকে হত্যা করেন। 

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে