হাসপাতাল কোয়ার্টার থেকে গাইনি ডাক্তারের লাশ উদ্ধার

হাসপাতাল কোয়ার্টার থেকে সুলতানা পারভীন (৩৭) নামে এক গাইনি ডাক্তারের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার (১৬ আগস্ট) সন্ধ্যা ৭টার দিকে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কোয়ার্টার থেকে ওই গাইনি ডাক্তারের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ব্যক্তিজীবনে অবিবাহিত ডাক্তার সুলতানা পারভীন ৩২তম বিসিএসের মেডিকেলের গাইনি ডাক্তার ছিলেন। তিনি মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া এলাকার আলাউদ্দিন আজাদ ও রহিমা আজাদের মেয়ে। দীর্ঘদিন ধরে তারা ঢাকার মোহাম্মদপুরের ২৮/এ নং বাসা, রোড নং-৩, মোহাম্মদী আবাসিক এলাকায় থাকেন। ২০১৮ সালের ১৬ আগস্ট মেলান্দহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদানের পর তিনি ওই কমপ্লেক্সের কোয়ার্টারে একাই বসবাস করতেন। মাঝেমাঝে তার মা এসে এখানে থাকতেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফজলুল হক জানান, আজ ডাক্তার সুলতানা পারভীন অফ ডিউটিতে ছিলেন। সারাদিন তার ঘরের দরজা বন্ধ থাকায় সন্দেহ হলে মেলান্দহ থানাকে বিষয়টি অবহিত করি। পুলিশ এসে ঘরের দরজা ভেঙে রুমে প্রবেশ করে তাকে মৃত অবস্থায় পান।

খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সীমা রানী ও সার্কেল এসপি ছামিউল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

অফিসার ইনচার্জ রেজাউল করিম জানান, ডাক্তার সুলতানা পারভীনের শরীরে প্যাথেডিন পুশের আলামত পাওয়া গেছে। এটা আত্মহত্যা কিনা, ময়না তদন্তের পর জানা যাবে।

মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামিম আল ইয়ামীন জানান, ডাক্তার পারভীন সুলতানার পরিবারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে। যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নিতে ওসিকে নির্দেশ দিয়েছি। মৃত্যুর কারণ ডাক্তারগণ বলতে পারবেন। ওসি রেজাউল করিম এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সীমা বিশ্বাস ঘটনার প্রাথমিক তদন্ত করছেন।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে