এবার মাদ্রাসা গভর্নিংবডিতে সভাপতি হতে হলে লাগবে যে যোগ্যতা হাইকোর্টের রায়ের পূর্নাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশ।

সারাদেশের মাদ্রাসা গুলোর  কামিল স্নাতকোত্তর
গভর্নিংবডিতে এবার সভাপতি হতে লাগবে গ্রাজুয়েট, গ্রাজুয়েট ছাড়া কোনো মাদ্রাসার সভাপতি  হওয়া যাবেনা এ প্রসঙ্গে হাইকোর্টে অনুলিপি প্রকাশ করেছে।

১৯ আগস্ট বিচারপতি মোঃ খায়রুল আলমের স্বাক্ষরের পরেই১৫ পৃষ্ঠায় এ রায় প্রকাশিত  হয়।

রায়ে বলা হয়েছে, কোনও ফাজিল মাদ্রাসার গভর্নিংবডির সভাপতি হতে হলে সেই ব্যক্তিকে ফাজিল বা ডিগ্রি পাস হতে হবে এবং কোনও কামিল মাদ্রাসার গভর্নিংবডির সভাপতি হতে গেলে সেই ব্যক্তিকে কামিল বা মাস্টার্স পাস হতে হবে।

রায়ে বলা হয় গত ২১ জানুয়ারি গ্র্যাজুয়েট ব্যক্তি ছাড়া  কোনও ফাজিল ও কামিল মাদ্রাসার গভর্নিংবডির সভাপতি  হতে পারবে না, এ বিষয়ে জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট।

আদালত রায়ে আরও বলেন, প্রতিষ্ঠান প্রধান প্রথমে ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কাছে স্নাতক ডিগ্রিধারী তিন জন ব্যক্তির নাম পাঠাবেন। তিন জনের মধ্য থেকে ভিসি একজনকে সভাপতি পদে মনোনীত করবেন। কিন্তু ডিও লেটারে কেউ সভাপতি হলে সেটা বাতিল হবে বলেও রায়ে উল্লেখ করা হয়।

একইসঙ্গে বগুড়া জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার কালিশ পুনাইল হামিদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার সভাপতি পদে এমপির ডিও লেটারধারী মো. বেলাল হোসাইন বাবলুকে মনোয়ন দেওয়ায় তার সভাপতি পদ বাতিল ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ৮ মার্চ বগুড়া জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার কালিশ পুনাইল হামিদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার সভাপতি পদে এমপির ডিও লেটারধারী মো. বেলাল হোসাইন বাবলুকে মনোনয়ন দেয় ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়। শুধু তার নামই সুপারিশ করে প্রতিষ্ঠান প্রধান ভিসির কাছে পাঠিয়েছিলেন। পরে বেলাল হোসাইন বাবুলকে সভাপতি পদে মনোয়ন দেওয়ার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট দায়ের করেন ওই মাদ্রাসার অভিভাবক সদস্য আরিফুল ইসলাম। এর পর থেকেই এটি নিয়ে হাইকোর্টের নজরে চলে আসে।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে