“হাল্ট প্রাইজের অর্গানাইজিং কমিটি হলো ডিআইইউতে।”

bdjournalist.com
ছবি সংগৃহীত

হাল্ট প্রাইজের অর্গানাইজিং কমিটি হলো ডিআইইউতে। শিক্ষার্থীদের নোবেল প্রাইজ’ খ্যাত হাল্ট প্রাইজ ফাউন্ডেশনের ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির  অন-ক্যাম্পাস ২০২০-২০২১ কার্যবর্ষের জন্য পাঁচজন উপদেষ্টা ও বিভিন্ন বিভাগ থেকে  নির্বাচিত ৫৭ সদস্য ও ৬ জন ভলান্টিয়ার নিয়ে পরিচালনা পরিষদ ঘোষণা করা হয়েছে।


সাবেক শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে  উপদেষ্টা হিসেবে সিভিল  ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মোফাজ্জল হোসাইন ও রাশেদুল ইসলাম, ইংরেজি বিভাগের মোহাইমেনুল শার্জিল ও মরিয়ম সরকার জয়া এবং ফার্মাসি বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী বিলাস পাল রয়েছেন।

ক্যাম্পাস ডিরেক্টর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ নোমান ইসলাম এবং ডেপুটি ক্যম্পাস ডিরেক্টর হিসেবে ইংরেজি বিভাগের ওয়াহিদ  তাওসিফ মুছা নির্বাচিত হয়েছেন।

অ্যাসিসট্যান্ট ডিরেক্টর (ইন্টারনাল অ্যাফেয়ার্স) হিসেবে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সৈয়দ মাহমুদ খালেদ  এবং অ্যাসিসট্যান্ট ডিরেক্টর (এক্সটার্নাল অ্যাফেয়ার্স) হিসেবে ইংরেজি বিভাগের শাহিন আহমেদ নির্বাচিত হয়েছেন।

চিফ কো-অর্ডিনেটর অফ জাজেস  হিসেবে রয়েছেন  সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মাসুদ আহমেদ এবং কো-অর্ডিনেটর অফ জাজেস হিসেবে মো: ওমর ফারুক, পুষ্প আক্তার ও তাসনিয়া মোহনা।

চীফ কো-অর্ডিনেটর অফ পার্টিসিপ্যান্টস  হিসেবে রয়েছেন ফার্মাসি বিভাগের  রাশেদুল হক এবং কো-অর্ডিনেটর অফ পার্টিসিপ্যান্টস হিসেবে রয়েছেন মনজু  আহমেদ , তাসলিমা রূপ পুতুল, মোসাঃ আমেনা আক্তার পাথুরী ও মো: এনামুল হক।

চিফ কো-অর্ডিনেটর অফ প্রোগ্রাম ম্যানেজমেন্ট হিসেবে দায়িত্বে আছেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের  আহমেদ মুসা জিসান এবং কো-অর্ডিনেটর অফ প্রোগ্রাম ম্যানেজমেন্ট হিসেবে রয়েছেন জাহিদ হাসান পিয়াস, সালাউদ্দিন সরকার সবুজ ও মোঃ হুজ্জাতুল ইসলাম শুভ।


চিফ কো-অর্ডিনেটর অফ প্রেস এন্ড মিডিয়াতে রয়েছেন ইংলিশ বিভাগের শিক্ষার্থী জাফর আহমেদ খান  শিমুল । এবং কো-অর্ডিনেটর অফ প্রেস এন্ড মিডিয়াতে আছেন সাদিয়া তানজিলা সানভী, ইউসুফ আল রাকিব এবং আর এম রাহাত ইসলাম।

চিফ কো-অর্ডিনেটর অফ টেকনিক্যাল সাপোর্টে আছেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের জামশেদ আলম এবং কো-অর্ডিনেটর অফ টেকনিক্যাল সাপোর্টে রয়েছেন রুহুল আমিন, কাজী ফিরোজ আহমেদ এবং এস এইচ সবুজ হোসেন।

চিফ কো-অর্ডিনেটর অফ লজিস্টিক সাপোর্টে আছেন  বিবিএ এর শিক্ষার্থী  মোঃ শাহ আলম এবং কো-অর্ডিনেটর অফ লজিস্টিক সাপোর্টে রয়েছেন ইসমাম হুসাইন মুবিন, আবুল কালাম আজাদ এবং সৌরভ-সাগর।
মেন্টর অফ গ্রাফিক্স ডিজাইনের দায়িত্বে আছেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মকবুল হোসাইন এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন  কোলাবোরেটর হিসেবে রয়েছেন  সাখাওয়াত হোসাইন ,সাগর চক্রবতী ও তানভীর রহমান।
মেন্টর অফ ফটোগ্রাফির দায়িত্বে আছেন বিবিএ এর শিক্ষার্থী মাইনুল আহসান নিশু  এবং ফটোগ্রাফি  কোলাবোরেটরে রয়েছেন জোবায়ের হোসাইন, মোঃ মামুন হাসনাত তামজীদ এবং রুদ্র কুন্ড।

চিফ কো-অর্ডিনেটর অফ ব্র্যান্ডিং এন্ড প্রমোশন এ আছেন সিএসই বিভাগের অনন্যা আক্তার মিম। কো-অর্ডিনেটর অফ ব্র্যান্ডিং এন্ড প্রোমোশন এ রয়েছেন অপর্ণা কীর্তনীয়া , সাকিবুল হাসান সাজিদ,  পাপিয়া আক্তার নিশু এবং মাহিরা মুবাশ্বিরা মার্শা।

চিফ কো-অর্ডিনেটর অফ পাবলিক রিলেশন্স এ আছেন ইংরেজি বিভাগের  ইয়ামিন মোল্লা। কো-অর্ডিনেটর অফ পাবলিক রিলেশন্স এ রয়েছেন ইসরাত জাহান , মুনিয়া রহমান, কামরুল শেখ ও তানজিলা আক্তার লিজা।


চীফ কো-অর্ডিনেটর অফ হসপিটালিটির  দায়িত্বে আছেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের নাসির উদ্দিন এবং কো-অর্ডিনেটর অফ হসপিটালিটিতে রয়েছেন হামিদ শাহরিয়ার, সাইফুল্লাহ সজল, হাবিবুর রহমান ও আরমান আলী।


চীফ কো-অর্ডিনেটর অফ স্পনসরশিপ এর দায়িত্বে আছেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের আনোয়ার হোসাইন। কো-অর্ডিনেটর অফ স্পনসরশিপ এ রয়েছেন  নুসরাত জাহান, টিটুল হোসাইন ও মোঃ আব্দুর রাজ্জাক।

ভলান্টিয়ার এর দায়িত্বে রয়েছেন শাহ্-জালাল, এনামুলহক রাজু, স্বরূপ বণিক, বাইজিদ তালুকদার, বাহারুল ইসলাম হিরা এবং সুমন দত্ত।

‘হাল্ট প্রাইজ’ হল তরুণদের ‘নোবেল পুরষ্কার’ খ্যাত বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্টার্টআপ অ্যাক্সিলারেটর প্রোগ্রাম ও বৈশ্বিক উন্নয়নের উদ্দেশ্যে আয়োজিত আন্তর্জাতিক ব্যবসায় উদ্যোগ প্রতিযোগিতা।

‘হাল্ট প্রাইজ’ হল এমন একটি ‘আইডিয়া কম্পিটিশন’ যেটি মূলত তরূণদের নিয়ে কাজ করে। তরুণদের মেধা-মনন ব্যবহার করে একটি অদ্বিতীয় ব্যবসা ভিত্তিক আইডিয়া প্রদানের মাধ্যমে পৃথিবীকে বদলে দিতে কাজ করে যাচ্ছে সংগঠনটি।

বর্তমান বিশ্বের যে কোন সামাজিক, অর্থনৈতিক ও পরিবেশ সংক্রান্ত সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে তরূণ নেতৃত্বের মেধাকে কাজে লাগিয়ে সাহায্য করাই মূলত সংগঠনটির মূল লক্ষ্য।

প্রতি বছর পৃথিবীজুড়ে প্রায় ১৫০০ এর বেশি ক্যাম্পাসে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায় থেকে বিজয়ী দলকে এরপর আঞ্চলিক বাছাই প্রক্রিয়ায় পাঠানো হয়।

চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলকে ১ মিলিয়ন বা ১০ লক্ষ মার্কিন ডলার প্রাইজ মানি হিসেবে উপহার দেওয়া হয়৷ যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন প্রতি বছর এ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন।

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে নভেম্বর মাস থেকে হাল্ট প্রাইজ এর বিভিন্ন ট্রেনিং সেশন, সেমিনার, কর্মশালা, সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধিসহ আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার ক্যাম্পাস রাউন্ড আয়োজন করা হবে বলে জানা গেছে।

এখানে নির্বাচিত বিজয়ী দল বাংলাদেশ ও ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কে বিশ্বের সকল দেশের সামনে উপস্থাপন করবে।

এসকল কার্যক্রম সুষ্ঠভাবে পরিচালনার লক্ষ্যেই  গত ২৪ আগস্ট  ২০২০-২০২১ কার্যবর্ষের জন্য  বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে পরিচালনা কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, এটি ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে হাল্ট প্রাইজ অন-ক্যাম্পাসের প্রথম টার্ম এবং সে অর্থে এটি ফাউন্ডিং কমিটি।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে