পদত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থতার কারণে পদত্যাগ করেছেন এবং রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে না পরার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে। এক সংবাদ সম্মেলনে আজ শুক্রবার এ ঘোষণা দেন তিনি। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেওয়ার সময় শিনজো অ্যাবে নির্ধারিত সময়ের এক বছর আগেই দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানো এবং বেশ কিছু রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে না পরার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

২০২১ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিনজো অ্যাবের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করার কথা ছিল।

পঁয়ষট্টি বছর বয়সী শিনজো অ্যাবে জানান, তাঁর আলসারেটিভ কোলাইটিস রয়েছে এবং নতুন ওষুধ ব্যবহার করে তাঁর চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।

শিনজো অ্যাবে বহু বছর থেকে আলসারেটিভ কোলাইটিস রোগে ভুগছেন। তবে সম্প্রতি তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নভেল করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার বিষয়ে শিনজো অ্যাবের বর্তমান সরকার সম্প্রতি ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে। জাপানের অনেকেই মনে করেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার ক্ষেত্রে এ সরকারের নেওয়া পদক্ষেপগুলোর মধ্যে সমন্বয় ছিল না।

এ মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রীর পদের জন্য শিনজো অ্যাবের কোনো উত্তরাধিকারী নেই।

জাপানের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচার সংস্থা এনএইচকে এর আগে জানিয়েছিল, শিনজো অ্যাবে তাঁর সরকারের জন্য সমস্যার কারণ হতে চান না।

২০১২ সালে জাপানের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়া শিনজো অ্যাবে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে দায়িত্ব পালন করা জাপানি প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে ২০০৭ সালেও প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে শিনজো অ্যাবে আলসারেটিভ কোলাইটিসে ভুগতে থাকায় হঠাৎ পদত্যাগ করেছিলেন। কৈশোর থেকেই এই রোগে ভুগছেন অ্যাবে।

শিনজো অ্যাবের আগ্রাসী মুদ্রানীতির মাধ্যমে, যা ‘অ্যাবেনমিকস’ হিসেবে পরিচিত, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি চাঙ্গা করার পাশাপাশি কট্টর রক্ষণশীল এবং জাতীয়তাবাদী মতবাদের অনুসারী হিসেবেও শিনজো অ্যাবের খ্যাতি রয়েছে। তিনি জাপানের প্রতিরক্ষা খাতকে শক্তিশালী করেছেন, প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয়ও বাড়িয়েছেন।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে