দলের সাথে কি দুরত্ব বাড়ছে,মেসির



বার্সা মানেই মেসি আবার মেসি মানেই বার্সা।তাদের এই সম্পর্কতো আর আজকে কয়েকদিনের নয়।
বার্সাতেই যেন মেসিকে মানায় ভাল,লালনীল জার্সি ছাড়া আর কোন জার্সিতে যেন মানান না তিনি।
কিন্তু নিজের পদত্যাগ পত্র পাঠানোর পর থেকে তাদের এই ওতোপ্রতো সম্পর্কে যেন ফাটল ধরেছে। তাই লিওলেন মেসি অংশ নেননি করোনা পরীক্ষা আর মেডিকেল টেস্টে। থাকছেন না অনুশীলনেও।
হোয়ান গাম্পার কমেপ্লক্সের সামনে ভক্ত, সাংবাদিকদের ভিড়। এইখানেই যেনচোখ বিশ্বের শত কোটি মেসি ভক্ত আর ফুটবলপ্রেমিদের। একে একে কত তারকাই প্রবেশ করলেন কমপ্লেক্সে। দল থেকে বাদ পড়া নিশ্চিত যে সুয়ারেজের তিনিও ছিলেন। করোনা পরীক্ষার মিছিলে ছিলো কোচ রোনাল্ড কোম্যানের উপস্থিতিও। নেই কেবল মেসি। শেষ পর্যন্ত তাই হতাশ সেই ভক্ত।
ক্লাবের ভেতরেও যেন তখন ভর করেছে শূণ্যতা। ক্যামেরার ক্লিক ক্লিক শব্দ সেই নিশব্দতাকে ভাঙ্গতে পারেনি। করোনা পরীক্ষা আর মেডিকেল টেস্ট দিয়ে আজকের অনুশীলনের অনুমতি পেয়েছেন সবাই।
বিকেলের প্রথম সেশনে অনুপস্থিত থাকছেন মেসি তা নিশ্চিত। তিনদিন অনুশীলনে না এলে বেতনের ২৫ শতাংশ কেটে নিতে পারে ক্লাব। আবার কার্যক্রমে অংশ নিলে নতুন মৌসুমেও দলে থাকবেন সেই সত্যটা জোড়ালোভাবে উপস্থাপন করতে পারে কাতালান জায়ান্টরা।
পাশাপাশি এখন দলবদলের সবচেয়ে বড় বাধা হয়ে দাড়িয়েছে লা লিগা। তারা বিবৃতিতে জানিয়েছে স্পেন আর বার্সেলোনা ছাড়তে চুক্তির শর্ত পূরণ করতে হবে। আর সেই শর্ত হলো বাই আউট ক্লজের সাতশ মিলিয়ন ইউরো দেয়া।
কিন্তু এত অর্থ দিয়ে কোনো ক্লাবেরই সামর্থ্য নেই মেসিকে নেয়ার। ৫ বছরের জন্য সবচেয়ে বেশি পাঁচশ মিলিয়ন ইউরো দেয়ার প্রস্তাবটা এসেছে ম্যানচেস্টার সিটি থেকে। তার আবার শেষ দুই বছর খেলতে হবে নিউইয়র্ক সিটি এফসিতে। যার অর্ধেক বেতন আর বাকিটা বোনাস।
উত্তাল ফুটবল বিশ্ব কিন্তু নিশ্চুপ মেসি। মুখ খুলেছেন তার চাচাতো ভাই। নিজের সিদ্ধান্তে সেরা ক্লাব যাতে বেছে নিতে পারেন সেই প্রত্যাশার কথা বলেছেন ম্যাক্সিমিলানো বিয়ানচুচ্চি চুচ্চিটিনি। বার্সা থেকে বিদায়ের তালিকায় থাকা আরতুরো ভিদালও সতর্ক করেছেন ক্লাবকে।
কি হতে যাচ্ছে সামনে তা দেখার জন্য বসে আছে পুরো ফুটবল বিশ্ব।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে