ভুরুঙ্গামারীতে কিশোরীকে এসিড নিক্ষেপ করায় যুবক আটক


কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে কিশোরীর শরীরে এসিড নিক্ষেপের সময় এক যুবককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে এলাকাবাসী। এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্রে জানাগেছে ৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার সময় মইদাম গ্রামের মুকুল মিয়ার ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে পড়ুয়া কন্যা মোছাঃ মিনারা খাতুন(১২) তার নানা বাড়িতে যাওয়ার পথে মইদাম বিজন মন্ডলের বাড়ীর নিকট গেলে একই গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের বখাটে ছেলে রশিদ মিয়া (৩৭) ইনজেকশনের সিরিঞ্জ দিয়ে ঐ কিশোরীর শরীরে এসিড নিক্ষেপ করায় ঐ কিশোরীর ওড়না পুড়ে যায়। এসময় কিশোরীর আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী রশিদকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।ভুরুঙ্গামারী থানার ওসি মুহাঃ আতিয়ার রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে গেলে এলাকাবাসী আটককৃত রশিদকে পুলিশের নিকট সোপর্দ করে।পরে ঐ কিশোরীকে ভুরুঙ্গামারী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা এসিড নিক্ষেপের কথা স্বীকার করলেও শরীরে বড় ধরনের কোন ক্ষতি হয়নি বলে জানান। এদিকে
রাতেই ঐ কিশোরীর পিতা মুকুল মিয়া বাদী হয়ে এসিড নিক্ষেপকারী রশিদের নামে ২০০২ সালের এসিড অপরাধ দমন আইনের ৬ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ০৪,তারিখ ০৩.০৯.২০২০ ইং।
ভুরুঙ্গামীর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মুহাঃ আতিয়ার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,এসিড নিক্ষেপের ঘটনা জানামাত্র পুলিশকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয় এবং আমি নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এলাকাবাসীর হাতে আটক রশিদকে আইনের আওতায় নেয়া হয়। পরে আজ শুক্রবার আটককৃত আসামীকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে