বরগুনায় ভূয়া এ্যাডিশনাল এসপি গ্রেপ্তার


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে এবং ফেক আইডি দিয়ে প্রতারনা করায় হাফিজুর রহমান বাদল নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে বরগুনা জেলা পুলিশ। বাদল দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পরিচয় দিয়ে আসছিলো।

শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার দিকে বরগুনা পৌরসভার সামনে নিজের ফার্মেসীর দোকান থেকে বাদলকে আটক করে বরগুনা ডিবি পুলিশ। ভুয়া এএসপি বাদল বরগুনা সদর উপজেলার ৭ নং ঢলুয়া ইউনিয়নের নলি চরগাছিয়া গ্রামের আব্দুল মজিদ হাওলাদারের ছেলে।

জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সাঈদের নামে একটি ভূয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে তার ছবি ব্যবহার করে দীর্ঘ এক বছর যাবত মেয়েদের সাথে অশ্লীল ছবি, ভিডিও দিয়ে কমপক্ষে ৭ থেকে ৮ জনের সাথে শারীরিক সম্পর্ক করেন হাফিজুর রহমান বাদল। এমন একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্টের সন্ধান পেয়ে বিস্তারিত তথ্য নেওয়া শুরু করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার। পরে ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাদলের অবস্থান সনাক্ত করে তাকে আটক করা হয়।

এ ব্যাপারে বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সাঈদের নাম এবং ছবি ব্যবহার করে ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে প্রায় ৬শ মানুষকে বন্ধু করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের পরিচয় দেয় বাদল । এরমধ্যে ১৫০ জনই হচ্ছে মেয়ে বন্ধু । তিনি ১শ মেয়ের সাথে চ্যাটিং করত এবং তাদেরকে অশ্লীল ছবি ও ভিডিও পাঠাতো। এর মধ্যে একাধিক মেয়ের সাথে শারীরিক সম্পর্ক করেছেন বাদল। আজ আমরা তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে জানতে পারি ফেইক আইডি টি পরিচালনা করে এই বাদল । পরে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয়। তিনি সৌদি আরব থাকা অবস্থায় এই ভূয়া আইডিটি এক বছর যাবত পরিচালনা করেন।

তিনি আরো বলেন, এছাড়াও আমি শুনেছি বরগুনার অনেকে ভুয়া আইডি খুলে বিভিন্ন মানুষকে হয়রানি করে এবং আজেবাজে মন্তব্য করে যাচ্ছে। এমনকি বরগুনা সদর থানায় এ নিয়ে কয়েকটি সাধারণ ডায়েরিও করা হয়েছে। আস্তে আস্তে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে।

বাদলের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থানার এসআই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও পর্নোগ্রাফি আইনে দুইটি মামলা দায়ের করেন। আগামীকাল আদালতের মাধ্যমে তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পাঠানো হবে।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২৯ আগস্ট (শনিবার) সন্ধ্যা সাতটার দিকে বরগুনা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনে থেকে সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল নামের জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক ভূয়া সচিবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে