পুলিশ পরিচয় বিয়ে, স্ত্রী তিন মাস পর জানলেন, স্বামী ভুয়া পুলিশ 


ঢাকার ধামরাই পৌর এলাকার বরাতনগর মহল্লায় আটক ভুয়া পুলিশ সৈয়দ মুরাদ।


ঢাকার ধামরাই উপজেলায় পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপপরিদর্শক (এসআই) পরিচয় দিয়ে বিয়ের তিন মাসের মাথায় স্বামীকে শ্রীঘরে পাঠিয়েছেন এক গৃহবধূ। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ধামরাই পৌর এলাকার বরাতনগর মহল্লায়। আটক পুলিশ পরিচয়দানকারী ব্যক্তির নাম সৈয়দ মুরাদ (৩০)। তিনি মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার হিজলিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ বলছে, তিন মাস আগে মানিকগঞ্জ জেলা ডিবি পুলিশের এসআই পরিচয় দিয়ে ধামরাইয়ের বরাতনগর এলাকার এক তরুণীকে বিয়ে করেন সৈয়দ মুরাদ। এ সময় মুরাদ স্ত্রীকে শ্বশুরবাড়িতেই রেখে বিভিন্নভাবে নির্যাতন চালাতেন। পরে গতকাল পুলিশের পোশাক পরে সৈয়দ মুরাদ বরাতনগর এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে এলে তাঁর কথাবার্তায় ভুয়া পুলিশ সন্দেহ হয় স্ত্রীর। এ সময় স্ত্রী ‘তুমি কোন থানায় কর্মরত আছো’ জানতে চাইলে তাঁকে মারধর করেন মুরাদ। স্ত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে মুরাদকে পিটুনি দেয়। এরপর ধামরাই থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করে।

নির্যাতিত ওই গৃহবধূ প্রতারক স্বামীর কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, আটক প্রতারক প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ পরিচয় দিয়ে ওই তরুণীকে বিয়ের কথা স্বীকার করেছেন। তাঁর বিষয়ে আরো তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তাঁর কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত পুলিশের পোশাকও উদ্ধার করা হয়। আটক ভুয়া পুলিশের বিরুদ্ধে আজ সকালে থানায় মামলা করে তাঁকে দুপুরে আদালতে পাঠানো হবে।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে