হিন্দু পরিচয়ে তরুনীর সাথে প্রেম,প্রেমিক মুসলমান জেনেই প্রেমিকার আত্মহত্যা,যুবক আটক

প্রেমিকাকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেয়ার অভিযোগে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা থেকে রিপন ইসলাম নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরবর্তীতে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


খানসামা থানা পুলিশ জানিয়েছে, ২৬ বছর বয়সী রিপন নিজের পরিচয় গোপন রেখে বিপ্লব রায় ছদ্মনামে পার্শ্ববর্তী গ্রামের লতা রায়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। রিপন খানসামা উপজেলার ভাবকি ইউনিয়নের আগ্রা গ্রামের শাহপাড়ার হায়দার আলীর ছেলে। আর লতা রায়ের বাড়ি খামারপাড়া ইউনিয়নের জোয়ার গ্রামে। প্রেমের সম্পর্ক থেকে দুইজন জড়িয়ে পরেন শারীরিক সম্পর্কে। এক সময় লতা তার প্রেমিককে বিয়ের প্রস্তাব দিলে রিপন টালবাহানা করতে থাকেন। গত ১৪ আগস্ট বিয়ের উদ্দেশ্যে লতা রায় বাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন। প্রেমিকের বাড়ি আসার পর এলাকার লোকজনের কাছে বিপ্লব রায়ের আসল পরিচয় রিপন ইসলাম জানতে পেরে লজ্জায় বাড়ি ফিরে আসেন এবং ওই দিন মধ্যরাতে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। এ ঘটনায় খানসামা থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয় এবং পুলিশ ময়নাতদন্তের পর মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। পরে লতার পরিবার পুলিশের কাছে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনের দাবি জানালে পুলিশ তদন্ত শুরু করে।

খানসামা থানা পুলিশ জানায়, লাশ উদ্ধারের পর থেকে জব্দকৃত আলামত, মোবাইল ফোনের বার্তা ও কথোপকথনের সূত্র ধরে অনুসন্ধান চালায় পুলিশ। এরই প্রেক্ষিতে ৭ সেপ্টেম্বর রিপন ইসলামকে আটক করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রিপন পরিচয় গোপন রেখে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্কের কথা স্বীকার করেন।

এ বিষয়ে খানসামা থানার ওসি শেখ কামাল হোসেন জানান, এ ঘটনার পরও রিপন একাধিক নারীর সঙ্গে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন। আটকের পর রিপনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

১ টি মন্তব্য

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে