ক্রিকেটার সাইফ হাসান ‘,দ্বিতীয় টেস্টেও করোনা পজিটিভ। 



ভাগ্য খারাপ সাইফ হাসানের। দলের সবাই যখন শ্রীলঙ্কা সফরকে সামনে রেখে অনুশীলনে ব্যস্ত সময় পার করছেন, তখন তাকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একাকী থাকতে হচ্ছে। সপ্তাহ খানেক পরে দ্বিতীয় টেস্টেও করোনা পজিটিভ এসেছে তার। ওদিকে সাইফের সঙ্গে করোনা পজিটিভ হওয়া বাংলাদেশ দলের ট্রেনার নিক লি সুস্থ হয়ে জাতীয় দলের সঙ্গে শেরে বাংলায় ফিটনেস ট্রেনিংয়ের পুরো তদারকি করছেন।

এ’ক’বা’র ক’রো’না টেস্ট হয়ে গেছে সবার। টপ অর্ডার সাইফ হাসান আর ট্রেনার নিক লি ছাড়া সবাই সে পরীক্ষায় পাসও করে গেছেন। করোনা পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা সবাই এখন হোম অব ক্রিকেটে নিয়মিত অনুশীলন করছেন। কিন্তু খানিক দুর্ভাগা সাইফ হাসান। সপ্তাহ খানেক পরে টেস্টেও পজিটিভ এসেছে এ টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানের। তবে এমন খবরে অস্বস্তি বাড়লেও বড় কোনো সমস্যা দেখছেন না বিসিবির প্রধান চিকিৎসক ডাঃ দেবাশীষ চৌধুরী।

দেবাশীষ বলেন, ‘আমাদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে আছে সাইফ। কোনোরকম শারীরিক সমস্যা নেই তার। সে বলা চলে সুস্থই আছে। শুধু দ্বিতীয়বার পজিটিভ আসায় আমরা তাকে আইসোলেশনে রেখেছি। সাধারণত দুই সপ্তাহের আগে করোনা সংক্রমণ কমে না। মানে পজিটিভ থেকে নেগেটিভ হয় না। তা জেনে বুঝেও সাইফকে সপ্তাহ খানেক পর দ্বিতীয় দফা টেস্ট করানো হয়েছিল ‘

কারণটাও বোধগম্য। রিপোর্ট নেগেটিভ আসা মানেই সুস্থতার সার্টিফিকেট নিয়ে আবার অনুশীলনে ফেরার সুযোগ। দেবাশীষ চৌধুরী জানান, ‘এমন চিন্তা থেকেই আমরা সপ্তাহ খানেক পরে তাকে দ্বিতীয়বার টেস্ট করিয়েছিলাম। কিন্তু পজিটিভ আসায় আর তার পক্ষে অনুশীলনে যোগ দেয়া সম্ভব হয়নি। তবে তার অন্য কোনো শারীরিক সমস্যা নেই। সাইফ ভালো আছে। আশা করি ১৫ দিনের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠবে।’

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে