লেবু খাওয়ায় শিশুকে গাছে বেঁধে বেদম মারধর’,কুপিয়ে আহত।

বাতাবি লেবু খাওয়ায় মো. হামিম তরফদার (১১) নামের এক শিশুকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর ও পরে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে পিরোজপুরের নাজিরপুরে। পরবর্তীতে আহত ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত শিশুটি উপজেলার অতুলনগর গ্রামের শাহেদুল তরফদারের ছেলে। এছাড়াও উপজেলার মাটিভাঙ্গার হাজি আব্দুল গানি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়েন হামিম। এ বিষয়ে আহত শিশুটির বাবা জানান, গত মঙ্গলবার বিকালে হামিম তার দাদি বাহারন বেগমের গাছের একটি বাতাবি লেবু পেড়ে ৬ জন বন্ধু মিলে খায়। আর এ ফল খাওয়া দেখে পার্শ্ববর্তী জাফর শেখ
ভেবেছিলো তার গাছের ফল খেয়েছে। এ ঘটনার জেরে গতকাল (বুধবার) দুপুরে ওই শিশুটি বাড়ির পাশের নদীতে গোসল করার সময় তাকে ডেকে নিয়ে নদীপাড়ের একটি মেহগনি গাছের সঙ্গে গামছা দিয়ে বাঁধে এবং বেদম মারধর করে। পরে মাথায় কুপিয়ে আহত করে মৃত্যু ভেবে ফেলে রাখে। পরে বিষয়টি স্থানীয় একটি শিশুর মুখে শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাক্তার অশেষ প্রতীম রায় বলেন, শিশুটিকে ধারালো কোনো কিছু দিয়ে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। অভিযুক্ত জাফর শেখ জানান, গত দুই দিন আগে হামিম আমার গাছের বাতাবি লেবু চুরি করে খায়। আমি তার কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে সে আমাকে ঘুষি মারে। এতে তার মাথায় একটি লাঠি দিয়ে আঘাত করি। এতে তার পিতা ও আত্মীয়স্বজন আমার ওপর হামলা করেছে।

থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মুনিরুল ইসলাম জানান, এমন কোনো খবর পাইনি। তারপরও বিষয়টির খোঁজ নেয়া হচ্ছে।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে