নাগেশ্বরীতে উপজেলা শিক্ষক-কর্মচারী কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিমিটেডের সংবাদ সম্মেলণ


কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে উপজেলা শিক্ষক-কর্মচারী কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিমিটেড (কালব) এর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগে লিগ্যাল নোটিস প্রদান শিরোনামে স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত অসত্য, বানোয়াট, মনগড়া, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও ভূয়া সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলণ করেছে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ। শনিবার সকাল ১১ টায় প্রেসক্লাব নাগেশ্বরীতে এ সংবাদ সম্মেলণ অনুষ্ঠিত হয়। লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান কালব এর সভাপতি হরচন্দ্র বর্মন ফন্টু।


তিনি বলেন কালব একটি জাতীয় সমবায়ী প্রতিষ্ঠান। ১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠিত এ সংগঠনটির সারাদেশের বিভিন্ন উপজেলায় প্রায় ৩৫০টি পুর্ন সদস্য সমিতি রয়েছে। ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালে নাগেশ্বরীতে এর পথচলা শুরু হয়। যার রেজি নং-৪৪। এটি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমবায় মন্ত্রণালয় ও সমবায় অধিদপ্তর কর্তৃক জারীকৃত প্রজ্ঞাপন, বিধি ও আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়ে আসছে। বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ১০৪১ জন। লিগ্যাল নোটিশ প্রদানকারী সাপখাওয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী মৌলভী শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম তাদের একজন। তার সদস্য নং ৫।

তিনি সমিতির সকল নিয়ম কানুন মেনে গত ২০১৬ সালের ০৭ নভেম্বর ৩ লক্ষ টাকা ঋণ নেন। যা তিনি শোধ করেননি। লভ্যাংশসহ বর্তমানে তার কাছে সমিতির পাওনা রয়েছে ৫ লক্ষ ৩৩ হাজার টাকা। অনেক তাগাদার পরেও তিনি ঋণ পরিশোধ না করে অন্য আরো বেশ কয়েকজন খেলাপী সদস্যদের নিয়ে সমিতির ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় সমিতি বাধ্য হয়ে তার বিরুদ্ধে গত ২০১৮ সালের ০৮ ফেব্রæয়ারী কুড়িগ্রাম জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং ২৮৪/১৮। মামলাটি শুনানী ও স্বাক্ষ্য শেষে রায়ের অপেক্ষায় রয়েছে।
তিনি আরো বলেন সমবায় সমিতি আইন ২০০১ ও সমবায় সমিতির বিধিমালা ২০০৪ এর ৮৮ ধারার ২ ও ৩ উপধারা অনুযায়ী সিরাজুল ইসলাম একজন ঋণ খেলাপী ও মামলা প্রাপ্ত হওয়ায় সমিতির হিসাব-নিকাশ তলবসহ কোন অধিকার প্রয়োগ করতে পারেন না। ঋণখেলাপী কোন সদস্যকে আইন অনুযায়ী সমিতি হিসাব দিতে বাধ্য নয়। শুধুমাত্র নিয়মিত সদস্যরা প্রতিষ্ঠানের সকল তথ্য পাওয়ার অধিকার রাখে। তবে প্রতিষ্ঠানটি প্রতি বার্ষিক সাধারন সভায় তার যাবতীয় আয়-ব্যায়, শেয়ার ও স য়ের লভ্যাংশের পরিমাণ খেলাপীর পরিমানসহ সকল তথ্য উপস্থাপন করে থাকে। তারপরেও ঋণ খেলাপী সিরাজুল ইসলাম সমিতির নিয়মনীতি উপেক্ষা করে অবৈধভাবে লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেন। আমরা যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সমিতি আইনী প্রক্রিয়ায় তা মোকাবেলা করবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন কালব সেক্রেটারী আমিনুল ইসলাম, নাগেশ্বরী উপজেলা শাখা ব্যবস্থাপক মোস্তাফিজুর রহমান, প্রেসক্লাব সভাপতি লিটন চৌধুরী, সম্পাদক পাভেল জামানসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সংবাদকর্মী এবং কালব এর কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যান্য সদস্যরা।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে