সীমান্তে হত্যা’, নির্যাতন বন্ধের দাবীতে ঢাকা থেকে প্রতিকী লাশ কাঁধে নিয়ে পায়ে হেঁটে কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরীতে হানিফ বাংলাদেশী


সীমান্ত জুড়ে প্রায়ই ঘটছে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশী হত্যার ঘটনা। বিজিবি-বিএসএফের উর্ধ্বতন ব্যক্তিরা মাঝেমধ্যেই সমঝোতার জন্য বসলেও থামছেনা হত্যাকান্ড। এসব সীমান্ত হত্যা বন্ধের দাবিতে দাবীতে ব্যতিক্রম প্রতিবাদ জানিয়ে প্রতিকী লাশ ঘাড়ে নিয়ে ঢাকা থেকে পায়ে হেঁটে সেই আলোচিত সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে নিহত ফেলানীর এলাকা কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে এসে একক পদযাত্রা শেষ করল হানিফ। এখানে ফেলানীর মা ও বাবা কৃতজ্ঞতা জানান হানিফের প্রতি।


নোয়াখালীর নিয়াজপুর ইউনিয়নের জাহানাবাদ গ্রামে জন্ম হানিফ বাংলাদেশী এর আগেও এ রকম অভিনব প্রতিবাদ করেছেন। ফেলানীর বাড়িতে যাওয়ার কথা থাকলেও সীমান্তবর্তী হওয়ায় যেতে পারেননি হানিফ। ফলে নাগেশ্বরীর মুক্ত মঞ্চে শেষ করেন পদযাত্রা। এখানে তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ফেলানীর বাবা-মা।
২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি কুড়িগ্রামের অনন্তপুর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে প্রাণ হারান কিশোরী ফেলানী। ভারতের বিশেষ কোর্টে বারবার থেমে যাচ্ছে এ মামলার রায়। ফেলানী হত্যা মামলার দ্রুত রায় প্রকাশের দাবী করেন হানিফ।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে