একটি মাছরাঙ্গা পাখিকে উদ্ধার করলো ফায়ার সার্ভিস

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:-২০.৭.২০২০


গাছের মধ্যে পরিত্যক্ত ঘুঁড়ির সুতো পাখায় আটকে গাছের ডালে ঝুলে ছিল একটি মাছরাঙ্গা পাখি। বাড়ির মালিক অবসর প্রাপ্ত জেল সুপারের নজরে আসলে পাখিটিকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন তিনি। ঘন্টা খানেক চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে তিনি ফায়ার সার্ভিসে ফোন করেন। ফোন পেয়ে পাখিটিকে বাচাঁতে ফায়ার সার্ভিসের ১০ সদস্যের একটি ইউনিট উপস্থিত হয় ঘটনাস্থলে। আধ ঘন্টা চেষ্টার পর পাখিটিকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিসের দল। পরে পাখায় জরানো সুতো ছাড়িয়ে আকাশে অবমুক্ত করে দেয়া হয় পাখিটিকে। এই দৃশ্য দেখতে উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায় ঘটনাস্থলে। পাখিটিকে মুক্ত করা কৌতুহলী দর্শনার্থী আনন্দে হাততালি দেন।
ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার সন্ধ্যায় কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাদ্দাম মোড়স্থ অবসর প্রাপ্ত জেল সুপার ও বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরল হকের বাড়িতে। তিনি বাড়ির একটি ঘরের পিছনে থাকা মেহগনি গাছের ডালে সুতোয় আটকা পড়া একটি পাখি ঝুলে থাকতে দেখেন। পরে নিজে অনেক চেষ্টা করে তাকে উদ্ধার করতে না পেরে নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে ফোন করেন। ফোন পেয়ে প্রায় ২৩ কিলোমিটার দূরের স্টেশন থেকে পাখিটিকে বাচাঁতে ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট ছুটে আসে। এসময় অসংখ্য মানুষ উদ্ধার কর্মযজ্ঞ দেখার জন্য ভীড় জমায়। উদ্ধার শেষে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের ধন্যবাদ দেন উপস্থিত জনতা।
বাড়ির মালিক বীর মুক্তিযোদ্ধা জানান, মাছরাঙ্গা পাখিটি আটকিয়ে পড়ায় দেখে মনটা খারাপ হয়ে গিয়েছিল। অনেক চেষ্টা করেও আমি উদ্ধার করতে পারিনি। ব্যর্থ হয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেই। তারা পাখিটিকে উদ্ধার না করলে হয়তো সেটি সেখানেই মারা যেত। পাখিটিকে উদ্ধার করতে ফায়ার সার্ভিস যে গুরুত্ব দিয়েছে তাদের দায়িত্বশীলতার জন্য তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তাদের প্রতি। তিনি বলেন প্রতিটি জীবন অমূল্য সেটাই পাখি হোক কিংবা মানুষই হোক।
ফায়ার সর্ভিস এবং সিভিল ডিফেন্স এর নাগেশ্বরী স্টেশনের টিম লিডার শাহিন সরকার জানান, একটি পাখি জীবন সংকটাপন্ন অবস্থায় আছে এমন ফোন পেয়ে কন্ট্রোল রুমকে জানাই। পরে টিম নিয়ে ঘটনা স্থলে উপস্থিত হই। প্রায় আধ ঘন্টা চেষ্টার পর পাখিটিকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় আমাদের টিম। একটি মাছরাঙ্গা পাখির জন্য এত আয়োজন এমন প্রশ্নে তিনি জানান, ফায়ার সার্ভিস তথা আমাদের কাজ হলো ঝুঁকিতে থাকা বা সংকটাপন্ন প্রাণ রক্ষা করা। সেটা মানুষ হোক আর পশু পাখিই হোক। এখানে একটা প্রাণ রক্ষায় আমাদের দ্বায়ীত্ব পালন করেছি মাত্র।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফিরুজুল ইসলাম জানান, পাখি উদ্ধারের ঘটনাটি আমি শুনেছি। জীবের প্রতিটি সদয় হওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে